নগদ একাউন্ট খোলার সহজ উপায়

নগদ একাউন্ট খোলা খুব সহজ আপনি ছাইলে, নিজেই ঘরে বসে আপনার মোবাইল দিয়ে৷ নগদ একাউন্ট খোলতে পারবেন৷ নগদ একাউন্ট খোলার সহজ উপায় নিয়ম নিচে দেওয়া হলো

নগদ একাউন্ট কি

একটি যুগান্তকারী ও নিরাপদ ডিজিটাল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস যা আপনাকে ক্যাশ ইন, ( আপনার মোবাইল নাম্বারে টাকা ডুকানো)। রক্যাশ আউট, টাকা পাঠানো, মোবাইল রিচার্জসহ বিবিধ দৈনিক লেনদেন সুবিধা দিয়ে থাকে।নগদ একাউন্ট খোলার সহজ উপায় গুলো জেনে নিন।

এখন নগদ একাউন্ট খোলা খুব সহজ।
নগদ একাউন্ট খোলতে আর এজেন্টের কাছে যেতে হবে না। ঘরে বসে আপনার মোবাইলে আপনি নিজেই খুলতে পারবেন নগদ একাউন্ট। নিচে দেওয়া লেখা অনুযায়ী আপনি নিজে নগদ একাউন্ট খোলে পেলুন।

ইসলামী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

নগদ একাউন্ট খোলার নিয়ম

১) প্রথমে প্লেস্টোর থেকে নগদ অ্যাপটি ডাউনলোড করুন (এই লিংক থেকে 🙂

২) আপনার মোবাইল নাম্বার টাইপ করুন

৩)৪ ডিজিটের পিন সেট করুন। পুনরায় পিন টাইপ করে কনফার্ম করুন (গোপন পিনটি কাউকে বলবেন না)

৪) ওটিপি কনফার্ম করুন

ব্যস হয়ে গেলো আপনার নগদ একাউন্ট । এবার লেনদেন করুন ইচ্ছেমতো।
ইউএসএসডি কোড ব্যবহার করে নগদ একাউন্ট খুলতে নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন:
৫) প্রথমে *১৬৭# ডায়াল করুন

৬) ৪ ডিজিটের পিন সেট করুন। পুনরায় পিন টাইপ করে কনফার্ম করুন (গোপন পিনটি কাউকে বলবেন না)

আরো পড়ুন ---        
.বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২০
.বিকাশ পিন লক হলে করণীয়

http://নগদ একাউন্ট খোলার সহজ উপায়

নগদ অ্যাপ ব্যবহার করে অ্যাকাউন্ট খুলুন

আপনি যদি নগদ অ্যাপ ব্যবহার করে নতুন একটি নগদ একাউন্ট তৈরী করতে চান;

তাহলে আপনাকে প্রথমে গুগল প্লে স্টোর বা আ্যাপ স্টোর থেকে অ্যাপসটি ডাউনলোড করে নিতে হবে।

যখনই অ্যাপসটি ডাউনলোড করা হয়ে যাবে তখন আপনাকে একাউন্ট খোলার জন্য কিছু স্টেপ ফলো করতে হবে। যা নিচে আলোচনা করা হলো।

অ্যাপস টি ডাউনলোড করা হয়ে গেলে এটি প্রথমে ওপেন করুন; এবং তার পরে তাদের প্রয়োজনীয় নির্দেশনা পড়ে নিন।

এবার আপনি বাংলা কিংবা ইংরেজি ভাষায় ব্যবহার করতে চান সেটি সিলেক্ট করে নিন। এবং অ্যাপসটিতে প্রবেশ করার পর আপনি এখানে এর

“রেজিস্ট্রেশন” নামের একটি বাটন পাবেন।রেজিস্ট্রেশন নামের বাটনে ক্লিক করার পরে আপনার মোবাইল নাম্বার এখানে লিখে দিন।

যে নাম্বার দিয়ে আপনি নগদ একাউন্ট খুলবেন।এবার আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের ছবি আপলোড করার কথা বলবে।

আপনি আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের উপরের অংশ এবং নিচের অংশের ছবি তুলে দিন।ছবি তুলে দেওয়ার পরে যে তারা সবকিছু যখন স্ক্যান করে নিবে,

 তখন আপনার একটি সেলফি তুলে দিতে হবে। এবং তার পরে তাদের টার্মস এবং কন্ডিশন এর সাথে একমত পোষণ করতে হবে।

এবার আপনার একাউন্টে সমস্ত ইনফরমেশন ঠিক থাকলে; আপনার একাউন্টের পিন সেট আপ করে দিলেই নগদ একাউন্ট খোলা সম্পন্ন হয়ে যাবে।

এবং তারপরে আপনি আপনার প্রোফাইল সেটাপ করতে পারবেন এবং একাউন্ট যে টাইপের তৈরি করেছেন

 সেটি সেটআপ করতে পারবেন। এটাই মূলত হলো নগদ একাউন্ট তৈরি করার একটি পদ্ধতি।

ইউএসডি কোড টাইপ করে নগদ একাউন্ট তৈরি করার পদ্ধতি

আমাদের মধ্যে যারা গ্রামীণফোন, রবি এবং এয়ারটেল সিম ব্যবহারকারী; তাদের জন্য জন্য নগদ একটি অভিনব সুবিধা নিয়ে এসেছে।

রবি, গ্রামীণফোন এবং এয়ারটেল ব্যবহারকারীরা যদি তাদের সিম থেকে *167#

 ডায়াল করে নেয়; তাহলে একটি পিন সেটআপ করার মাধ্যমে নতুন অ্যাকাউন্ট খুলে ফেলবে।

ইউএসডি কোড টাইপ করে নগদ একাউন্ট তৈরি করার পদ্ধতি

আপনি যখনই *167# ডায়াল করবেন তখন নতুন পিন সেটআপ করার অপশন পাবেন। এখানে আপনি 4 ডিজিটের একটি পিন দিয়ে দিলেই আপনার নগদ একাউন্ট একটিভ হয়ে যাবে।

আর আপনি এভাবে চাইলেই খুব সহজে নতুন একটি নগদ একাউন্ট তৈরি করতে পারবেন; এবং নগদ একাউন্ট এর সমস্ত অফার উপভোগ করতে পারবেন।

নগদ এজেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম

আপনি যদি নগদ এজেন্ট একাউন্ট খুলতে চান; তাহলে আপনাকে প্রথমত নগদের যে সার্ভিস পয়েন্ট রয়েছে সেখানে যেতে হবে

আপনার আশেপাশে থাকা নগদ ডিস্ট্রিবিউশন ম্যানেজারের সাথে যোগাযোগ করতে হবে। আপনি যদি নগদ,

ডিস্ট্রিবিউশন ম্যানেজারের সাথে যোগাযোগ করতে না পারেন; তাহলে আপনার আশেপাশে থাকা নগদ এজেন্ট এর সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

কারণ নগদ এজেন্ট এর সাথে আপনি যখন যোগাযোগ করবেন তখন তারা আপনাকে নগদ ডিস্ট্রিবিউশন,

 ম্যানেজারের সাথে যোগাযোগ করার সহজ পন্থা সম্পর্কে বলে দিতে পারবে।

নগদ এজেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম হিসেবে আপনার কাছে যে বিষয়গুলো বাধ্যতামূলক থাকা দরকার সেগুলো হলোঃ

যে কোন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ট্রেড লাইসেন্স।ট্রেড লাইসেন্স এর ছবি এবং আপনার এনআইডি কার্ড।সম্পূর্ণ নতুন একটি ফোন নাম্বার যা দিয়ে এখনও নগদ একাউন্ট খোলা হয়নি।

উপরোক্ত বিষয়গুলো যখন আপনি নগদ ডিস্ট্রিবিউশন ম্যানেজারের কাছে জমা দিবেন;

তখন আপনি যদি নগদ এজেন্ট একাউন্ট খোলার জন্য উপযোগী হন তাহলে সেই সম্পর্কে সে আপনাকে জানিয়ে দিবে।

এই প্রসেস টি শেষ হয়েছে মূলত 20 থেকে 30 দিনের মতো সময় লাগতে পারে।

 আপনি এজেন্ট হওয়ার জন্য উপযোগী হলে পরবর্তী সময়ে তারা আপনাকে একটি এজেন্ট সিম দিয়ে দিবে।

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং ডায়াল কোড

একাউন্ট খোলার পরে আপনি মোবাইল ব্যাংকিং ডায়াল কোড এর মাধ্যমে আপনার একাউন্ট মেনটেন করতে পারবেন।

মোবাইল নগদ ব্যাংকিং ডায়াল কোড : *167#

 ” যা আপনি যে সিম থেকে অ্যাকাউন্ট তৈরি করেছিলেন সে সিম থেকে ডায়াল করলেই আপনার অ্যাকাউন্টের মেনু বার দেখতে পারবেন।

এবং এই কোড ডায়াল করার মাধ্যমে আপনি চাইলে টাকা ক্যাশ ইন, ক্যাশ আউট, মোবাইল রিচার্জ ,বিল পেমেন্ট সহ অন্যান্য সুযোগ সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন।

নগদ ধারা যে যে সুবিধা পাওয়া যায়।

১) ক্যাশ ইন

ক্যাশ ইন সার্ভিস এর মাধ্যমে দেশের যেকোনো নগদ উদ্যোক্তা পয়েন্ট থেকে আপনার নগদ অ্যাকাউন্টে টাকা জমা করতে পারবেন

          ২) সেন্ড মানি

আপনার নগদ অ্যাকাউন্ট থেকে অন্য কোনো নগদ অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠাতে পারবেন।

           ৩) ক্যাশ আউট

আপনার নগদ অ্যাকাউন্টে থেকে টাকা উত্তোলন করুন

          ৪) মোবাইল রিচার্জ

মোবাইল রিচার্জ করুন আপনার নগদ অ্যাকাউন্ট দিয়ে

            ৫) সঞ্চয়

নগদ অ্যাকাউন্ট ছাড়াই টাকা পাঠাতে ও গ্রহণ করতে পারবেন।

            ৬) নগদ বিল পে

আপনার মোবাইল এর মাধ্যমে বিভিন্ন রকম বিল পে করতে পারবেন।
যেমনঃ বিদুৎ বিল।গ্যাস এর বিল ইত্যাদি।

তাই এখনি দেরি না করে নগদ, একাউন্ট খোলে পেলুন।আপনার বিভিন্ন কাজে আসবে।

নগদ একাউন্ট সুরক্ষিত রাখার উপায়


আপনাকে কেউ যদি কল বা মেসেজ দিয়ে বলে, পিন নাম্বার দিতে। আপনি কখনো তা দিবেন না। কারন নগদ,কখনো আপনার কাছে পিন নাম্বার ছাইবে না। তাই প্রতারকের হাত থেকে দুরে থাকবেন।আর আপনার নগদ, একাউন্ট এর পিন নাম্বার কাউকে বলবেন না। বললে হয়তো সে আপনার নগদ একাউন্ট, হেক করে আপনার নগদ, একাউন্ট থাকা সব টাকা নিয়ে যেতে পারে। তাই সবসময় সতর্ক থাকবেন।

এই ধরনের আরো আপডেট পেতে আমার, ওয়েবসাইট পহেলা ডট ইনফো এর সাথে থাকুন।

2 thoughts on “নগদ একাউন্ট খোলার সহজ উপায়”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *