বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২১

বিকাশ একাউন্ট খোলা অনেক সহজ কাজ,বিকাশ একাউন্ট কিভাবে খোলা যায় তা জেনে নিন,তাই বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২১ গুলো নিচে দেওয়া হলো। বিকাশ একাউন্ট খোলার জন্য কি কি প্রয়োজন তা হলো।

বিকাশ একাউন্ট খোলার সুবিধা কি কি।

১)বিকাশ একাউন্ট

  • বিকাশ প্রদত্ত সেবাসমূহ ব্যবহারের জন্যে মোবাইল ফোনে, যে একাউন্টটি খোলা হয় সেটিই বিকাশ একাউন্ট। একাউন্ট খোলার পর আপনার মোবাইল নম্বরই হবে, আপনার বিকাশ একাউন্ট নম্বর।
    বিকাশ একাউন্ট খোলা
    .
    ২)- আপনার মোবাইল ফোনে বিকাশ একাউন্ট চালু করা। আপনার সিম এর মাধ্যমে। সিম ছাড়া বিকাশ একাউন্ট খোলা যায় না।

৩) বিকাশ মোবাইল মেন্যু

  • *২৪৭# ডায়াল করে আপনি যে মেন্যু দেখতে পান।

৪) ক্যাশ ইন

  • বিকাশ একাউন্টে টাকা জমা রাখার পদ্ধতি।

৫) ক্যাশ আউট

  • আপনার বিকাশ একাউন্ট থেকে টাকা উত্তোলনের পদ্ধতি। আপনি যে কোন বিকাশ এজেন্ট অথবা ব্র্যাক ব্যাংক, এবং Q-Cash এটিএম থেকে ক্যাশ আউট করতে পারবেন।

৬)  সেন্ড মানি

  • একটি বিকাশ একাউন্ট থেকে আরেকটি, বিকাশ একাউন্টে টাকা পাঠানোর পদ্ধতি।

৭) মোবাইল রিচার্জ

  • মোবাইল রিচার্জ সেবার মাধ্যমে আপনি আপনার বিকাশ একাউন্ট থেকে,মোবাইল রিচার্জ করতে পারবেন।

৮) পেমেন্ট

  • আপনি যখন আপনার বিকাশ একাউন্ট থেকে একজন বিক্রেতাকে পণ্য।অথবা সেবার বিনিময়ে বিল প্রদান করেন।

৯) রেমিট্যান্স

  • বিদেশ থেকে বাংলাদেশে বিকাশ একাউন্টে টাকা পাঠানো,বা গ্রহণ করা।

১০) মাই বিকাশ

  • বিকাশ মোবাইল মেন্যুর একটি অপশন মাই বিকাশ, যেখান থেকে আপনি আপনার একাউন্ট ব্যাল্যান্স চেক করতে, সংক্ষিপ্ত স্টেটমেন্ট দেখতে, ম্যানেজ বেনিফিশিয়ারি, এম এন পি তথ্য আপডেট এবং পিন নম্বর পরিবর্তন করতে পারবেন। 
    ১১) বিকাশ মোবাইল মেন্যু  পিন
  • এটি পাসওয়ার্ডের মত একটি গোপন নম্বর যা,আপনার বিকাশ একাউন্টের নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে।

১২)  সিকিউরিটি কোড

–  সিকিউরিটি কোড একটি একবার ব্যবহারযোগ্য পিন। আপনি যখন এটিএম থেকে ক্যাশ আউট করবেন, তখন আপনার একটি সিকিউরিটি কোড তৈরি করতে হবে, যা পরবর্তী ৫ মিনিটের মধ্যে একবারই ব্যাবহারযোগ্য। 


১৩) ট্রানজেকশন আইডি

-প্রতিটি লেনদেনের জন্য সিস্টেমের মাধ্যমে তৈরিকৃত,একটি সতন্ত্র তথ্যসূত্র নাম্বার,যা সনাক্তকরার জন্য সংরক্ষণ করা হয়।


১৪) রেফারেন্স

-নিজের ভবিষ্যত প্রয়োজনের জন্যে লেনদেনের উদ্দেশ্য উল্লেখ করা।

বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২১

নতুন বিকাশ একাউন্ট খোলা একদম সিম্পল ! বর্তমানে সকল এয়ারটেল, বাংলালিংক, টেলিটক, গ্রামীণফোন এবং রবি গ্রাহকগণ বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন,নিজের ফোন থেকেই! বিকাশ অ্যাপ ডাউনলোড করে অ্যাপ,থেকেই ঘরে বসে একাউন্ট খুলতে পারবেন। বিকাশ অ্যাপ ডাউনলোড করার পর অ্যাপটিতে প্রবেশ করে।লগ ইন/ রেজিস্ট্রেশন কিলিক করুন। এর পর আপনারা মোবাইল নাম্বার দেন,পরে আপনারা নাম্বারে একটি পিন আসবে ওইটা দেন।কিছু শর্ত মেনে পরবর্তী ধাপে যাবেন।
আপনার NID এর ছবি তুলে দেন,এবং

কিছু প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদান করুন।

নিজের চেহারার ছবি তুলুন।

আপনার বিকাশ একাউন্ট খোলা হয়ে গেছে, ২৪ ঘন্টার মধ্যে আপনি বিকাশ এর গোপন নাম্বার দেন।
বিকাশ একাউন্ট খোলার পর আপনাকে আপনার বিকাশ মোবাইল,মেন্যুটি এক্টিভেট করে নিতে হবে। আপনার মোবাইল,মেন্যু এক্টিভেট করতে নিচের পদ্ধতি অনুসরণ করুনঃ
১। *২৪৭# ডায়াল করে বিকাশ মোবাইল মেন্যুতে যান।
২। “ এক্টিভেট মোবাইল মেন্যু” বেছে নিন।
৩। বিকাশ একাউন্টের জন্য ৫ ডিজিটের পিন নম্বরটি,প্রবেশ করান
৪। কনফার্ম করার জন্য আপনার,পিন নম্বরটি আবার প্রবেশ করান  

বিকাশ একাউন্ট খোলার জন্য কি কি প্রয়োজন।

  • আপনার পিন নম্বরটি সব সময় গোপন রাখুন।
    সকল প্রক্রিয়া সঠিক ভাবে সম্পন্ন হবার,পর আপনার মোবাইল নম্বরটি একটি বিকাশ একাউন্ট,নম্বর হিসেবে গণ্য হবে। আপনার বিকাশ একাউন্ট এর মাধ্যমে প্রাথমিক ভাবে,মোবাইল রিচার্জ, ক্যাশ ইন এবং টাকা গ্রহণ সেবা,ব্যবহার করতে পারবেন। তবে, আপনার KYC ফরম এর তথ্য যাচাই হয়ে গেলে, ৩-৫ কার্যদিবসের মধ্যে আপনি “ক্যাশ আউট”, “ মোবাইল রিচার্জ “, “পেমেন্ট” এবং বিকাশ এর  অন্যান্য সেবা সমূহ উপভোগ করতে পারবেন। আপনার একাউন্টটি সম্পূর্ণভাবে সক্রিয় হওয়ার পর *247# ডায়াল করে দিন রাত ২৪ ঘণ্টা, সপ্তাহে ৭ দিন বিকাশের সেবা ব্যবহার করতে পারবেন। একজন গ্রাহক বিকাশ সেন্টার,অথবা বিকাশ কেয়ার থেকে একাউন্ট খুললে,সাথে সাথে বিকাশ এর সকল সেবা,উপভোগ করতে পারবেন। 

১) আপনার NID এর পটো কপি

২) দুইটা পাসপোর্ট সাইজের ছবি।

বিকাশ একাউন্ট থাকলে কি সুবিধা পাওয়া যায়।

একটি বিকাশ একাউন্ট থাকলে,অনেক গুলো সুবিধা পাওয়া যায়

১) আপনি যেই কোনো যায়গা থেকে, টাকা লেনদেন করতে পারবেন।
২)ঘরে বসে মোবাইল রিসার্চ করতে পারবেন।বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার করার নিয়ম,বিকাশ একাউন্ট খোলার সুবিধা অনেক রয়েছে পনার গ্যাস,বিদ্যুৎ ইত্যাদির বিল ঘরে বসে দিতে পারবেন। আরো অনেক সুযোগ সুবিধা পাওয়া যায়।

বিকাশ সম্পর্কে আরো আপডেট পেতে,আমার ওয়েবসাইট পহেলা ডট ইনফো এর সাথে থাকুন ।

7 thoughts on “বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২১”

  1. Pingback: নগদ একাউন্ট খোলার সহজ উপায় ২০২০

  2. Pingback: বিকাশ পিন লক হলে করণীয়

  3. Pingback: পাসপোর্ট করার নিয়ম - পাসপোর্ট ফি জমা দেয়ার নিয়ম জেনে নিন

  4. Pingback: ইসলামী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম - Pohela.info

  5. Pingback: নগদ একাউন্ট খোলার সহজ উপায়

  6. My partner and I absolutely love your blog and find nearly all of your post’s to be exactly I’m looking for. Would you offer guest writers to write content in your case? I wouldn’t mind producing a post or elaborating on a number of the subjects you write about here. Again, awesome weblog!

  7. I’m often to blogging and i really recognize your content. The article has really peaks my interest. I am going to bookmark your web site and hold checking for new information.

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *