শীতে ত্বক ভালো রাখার সহজ উপায়

আমরা সবাই কম বেশি ত্বকের যত্ন নেওয়ার চেষ্টা করি। কিন্তু অনন্য সময় যেমনি যাক যখন শীতকাল  আসে আমাদের ত্বকের যত্ন নিতেই হয় না হলে, ত্বক দেখতে অনেক কুচ্ছিত দেখায়। তাই শীতে ত্বক ভালো রাখার সহজ উপায় গুলো জেনে নিন  তা হলে আর আপনার শীতকালে ত্বক খারাপ দেখাবে না।

শীতে ত্বক ভালো রাখার সহজ উপায়

শীতে রুক্ষ হাওয়া ত্বক তার আদ্রতা হারিয়ে ফেলে। কোন ত্বকে কেমন যত্ন চাই?
জানাচ্ছেন মেকওভারের রূপবিশেষজ্ঞ শোভন শাহা,,

দেখতে দেখতে বছর ঘুরে চলে এলো শীতকালের আমেজ। হিম হিম ঠান্ডা হাওয়ায় এই সময় ত্বক হয়ে ওঠে রুক্ষ,শুষ্ক,টানটান তাই।

শীতের দাপুটে বাতাস,ধুলাবালি, ঠান্ডা, কাশি,আর শীতপোষাক নিয়ে টালমাটাল সময়ে আর ব্যস্ত জিবনে ত্বকের দিকে খুব কমই খেয়াল রাখা হয়।

 আর এই সময়টায় আমাদের ত্বকের যা ক্ষতি হওয়ার তা তো হয়েই যায়। তাই শীতকালে ত্বক রুক্ষ ও অনুজ্জ্বল হয়ে যাওয়া থেকে রক্ষা করতে দরকার একটু বাড়তি যত্ন।

 নিয়মিত যত্নে শীতকালে ত্বক থাকবে মসৃণ, ঝলমলে ও স্বাস্থ্যোজ্জল।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের চর্ম ও যৌন বিভাগের অধ্যাপক নার্গিস আখতার জানান,, শীতে ত্বকের শুষ্কতা রোধ করতে জলপাই তেল,

 লোশন,বা ভ্যাসলিন ব্যবহার করতে হবে। তাতে ত্বক আর্দ্রতা ধরে রাখতে পারবে। পানি,পানি জাতীয় খাবার,ফল ও ফলের রস,

 সতেজ শাকসবজি ও ভিটামিন সি জাতীয় খাবার খেতে হবে প্রচুর পরিমাণে।কফির বদলে চা খাওয়াই উত্তম। সবুজ চা খেতে পারলে খুব ভালো,

আর লাল চা হলে তাতে আদা বা লেবু মিশিয়ে খেলে সেটাও ত্বকের জন্য উপকারী।  

শুষ্ক ত্বকের যত্ন

শুষ্ক ত্বক শীতে আরো বেশি রুক্ষ, শুষ্ক হয়ে পড়ে।এ ধরনের ত্বকের জন্য ভিটামিন -ই তেল আধা চামচ,

 আর আধা চামচ গ্লিসারিন  মিশিয়ে প্রতিদিন লাগাতে পারেন। ত্বকের পুষ্টি যোগাতে ডিমের কুসুম,১ চা চামচ মধু,

 আধা চামচ জলপাই তেল ও পরিমাণ মতো গোলাপ জল মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ৩ দিন ব্যবহার করলে ভালো ফল পাওয়া যাবে।তাই শীতে ত্বক ভালো রাখার সহজ উপায় গুলো জেনে নিন ।

তৈলাক্ত ত্বকের যত্ন

 যাদের তৈলাক্ত ত্বক তাদের ময়েশ্চারাইজারসমৃদ্ধ লোশন ব্যবহার করা প্রয়োজন। এ সময়ে তৈলাক্ত ত্বকের জন্য,

 বেচে নিন অয়েল ফ্রি ময়েশ্চারাইজার।
প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজার হিসাবে  গোসলের আগে অলিভ অয়েলের সঙ্গে সামান্য পানি মিশিয়ে ত্বকে ব্যবহার করুন।

১৫-২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। মধু,লেবুর রস,বেকিং সোডার মিশ্রিত ফেসপ্যাক দিয়ে মুখের ত্বক স্ক্রাব করুন। ত্বকের মরা চামড়া উঠে ত্বক হবে উজ্জ্বল।

ত্বকের কালো দাগ দূরীকরণ

কমলালেবু
কমলালেবুতে আছে প্রচুর ভিটামিন-সি, বিটাক্যারোটিন, ফসফরাস ও আয়রন। এই সব উপাদান,

ত্বকের কালো দাগ দূর করতে সাহায্য করে। তা ছাড়া কমলালেবুর খোসা শুকিয়ে গুঁড়ো করেও ব্যবহার করা যায়।

শুকনো কমলালেবুর খোসা ভালো করে মিক্সিতে গুঁড়ো করে নিন। এর পরে ওই গুঁড়োর মধ্যে ১ চামচ মধু,

১ চামচ অলিভ অয়েল, ১-২ চামচ টক দই মেশান। ভালো করে মিশিয়ে নিয়ে মিশ্রণটাকে মুখে লাগান।

১৫ মিনিট প্যাকটি লাগিয়ে রাখুন। শুকিয়ে গেলে নরমাল পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।

ত্বকের যত্ন নিতে একটি ঘরোয়া টিপস

উপকরন
দুধ, দই, মধু, গোলাপজল।

কিভাবে ব্যবহার করবেন
একটি পাত্রে আধা কাপ দুধ নিন। সাথে দই মেশান এক চামচ। তারপর ১ চামচ মধু ও ১ চামচ গোলাপজল মিশিয়ে নিন।

তৈরি আপনার প্যাক। ট্যান হয়ে যাওয়া অংশে লাগিয়ে রাখুন ৩০ মিনিট। তারপর জল দিয়ে দুয়ে নিন। রোজ একবার করে এপ্লাই করুন।

গোসলের পর ও প্রতিবার মুখ ধোয়ার পর ত্বক ভেজা থাকতেই ময়েশ্চারাইজার বা লোশন ব্যবহার করা উচিত।

এতে ত্বকের আদ্রতা বজায়  থাকবে।রাতে ঘুমানোর আগে ও লোশন ব্যবহার করুন।

শীতকালে ত্বকের আদ্রতা বজায় রাখতে মাঝেমধ্যে মুখে পানির ঝাপটা দেওয়া ভালো। তাহলে ত্বক সহজে শুষ্ক হয়ে যাবে না।

ঠোঁট নরম রাখতে গ্লিসারিন ব্যবহার করুন। ঘুমানোর সময় ঠোঁটে হালকা লিপজেল লাগালে ঠোঁট নরম থাকে।

আরো পড়ুন ----  
.সকালে কাঁচা ছোলা খাওয়ার উপকারিতা
.ফুসফুস ভালো রাখার জন্য যেসব খাবার খাবেন
.রাতে তারাতারি ঘুম আসার কিছু সহজ উপায়

 শীতে ঠোঁট ভালো রাখার উপায়

শীত পুরোপুরি না এলেও আবহাওয়ায় ঠান্ডা ভাব কিন্তু চলে এসেছে। এ সময়টায় ঠোঁট শুষ্ক ও খসখসে হয়ে পড়ে। অনেকের আবার সারা বছরই ঠোঁট খসখসে থাকার সমস্যা হয়।

খসখসে ঠোঁটের সমস্যার সমাধানে এবং ঠোঁট নরম রাখতে কিছু উপায় জানিয়েছে জীবনধারাবিষয়ক ওয়েবসাইট বোল্ডস্কাই। 

ঠান্ডা দুধ

দুধের পুষ্টি ঠোঁটকে নরম করে। দুধকে ফ্রিজে রেখে ঠান্ডা করে নিন। কিছুক্ষণ পর ঠান্ডা দুধকে ধীরে ধীরে ঠোঁটে মাখুন।

একে ১৫ মিনিট রেখে শুষ্ক হতে দিন। এরপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ঠোঁট নরম রাখার জন্য দিনে দুবার এই পদ্ধতি অনুসরণ করতে পারেন।

ঠান্ডা দুধের এই প্রণালি সারা বছরই ব্যবহার করা যেতে পারে।

ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার ক্রিমের নাম

ঠোটের কালো ভাব,ফাটা ভাব নিয়ে আর নয় চিন্তা এখন নিয়মিত  Scru Lip Cream এই ক্রিম ব্যাবহারের মধ্যে আপনার কালো ঠোঁট হয়ে জাবে গোলাপি।

উপকারিতা:


এইটা ঠোঁটে লাগিয়ে ভালোভাবে scrub করতে হয়,এতে ঠোঁটের ময়লা,ঠোঁট ফাটা ও ঠোঁটের কালো দাগ দূর হয়, এছাড়া ঠোঁট খুব মসৃণ ও সফট হয়ে যায়।

ইউজের সাথেসাথেই চেইন্জিং দেখা যায়। ময়লা উঠে আসে। এতে কালচে ভাব বের হয়ে ঠোঁট গোলাপি হয় । মরা কালো চামড়া বের করে আনে,সফট লাগে।

Q জেল টাইপ।।। একটা ফুল ইউজ এই যথেষ্ট।ইউজ ছেড়ে দিলেও গোলাপি-ই থাকবে। বিশ্বজুড়ে অনেক রিভিউ আছে এর।

এটি ব্যবহারে লিপ pink হবে
সিগারেট এর কালো দাগ যাবে ঠোট থেকে।
লিপ সফট হবে।
শীত ও অন্য সময় ভালো থাকবে লিপ

কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই।
এইটা প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর আগে লিপ এ এপ্লাই করবেন, সকালে ওঠে  লিপস টা ওয়াশ করে ফেলবেন। (উম্মে হাবিবা)

এই ধরনের আরো আপডেট পেতে আমার ওয়েবসাইট পহেলা ডট ইনফো এর সাথে থাকুন এবং আমার ওয়েবসাইট ভিজিট করুন।

1 thought on “শীতে ত্বক ভালো রাখার সহজ উপায়”

  1. Tawhidul Islam Tommoy

    It’s a very helpful for us.. Thanks for giving like this… Hope you give as like something all the time… 😇

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *